Tech Gyan

ফ্রিল্যান্সিং শেখার নামে প্রতারিত হচ্ছেন না তো?

আসসালামু আলাইকুম, আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকের আলোচনার মূল বিষয় বস্তু হলো ফ্রিল্যান্সিং শেখা নিয়ে। আপনি একজন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং নামে শুনেন নি এমনটা হওয়ার সম্ভবনা খুবই কম। এমন কি যেসব ব্যক্তিরা ইন্টারনেট ব্যবহার করে তাদের মুখে দেখবেন ফ্রিল্যান্সিং বা অনলাইন থেকে টাকা ইনকামের কথা। যারা অনলাইনে নতুন এবং ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চাচ্ছেন নিজের ক্যারিয়ার গড়তে চাচ্ছেন তাদের জন্য এই আর্টিকেল অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করবে। এই জন্য অবশ্যই আপনাদের সবাইকে আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ার অনুরোধ রইল।

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আগ্রহী হয়ে থাকেন বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া সহ অফলাইনে অনেক ধরনের বিজ্ঞাপন দেখেছেন। সেইখানে অনেক লোভনীয় টাইটেল দেওয়া কোর্স দেখেছেন যেমনঃ ৩-৬ মাস কাজ শিখে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করুন হাজার হাজার টাকা, ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করুন লক্ষ লক্ষ টাকা, গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে অনলাইন থেকে ইনকাম করুন, ওয়েব ডিজাইন শিখে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করুন হাজার হাজার ডলার ইত্যাদি ইত্যাদি।

অথবা, আপনি ইন্টারনেট দুনিয়ায় বিভিন্ন ব্যক্তির ফ্রিল্যান্সিং করে সফলতা অর্জন করা নিয়ে গল্প শুনে আগ্রহীয় হয়েছেন। আর না হয়তো কারো মার্কেটপ্লেসের ইনকামের স্ক্রিনশট দেখে অনেক আগ্রহী হয়েছে। ফ্রিল্যান্সিং জিনিসটা মানুষের সাথে পরিচিত হওয়ার সাথে সাথে বেড়ে উঠেছে নানা রকম আইটি ট্রেনিং প্রতিষ্ঠান অনলাইন প্লাটফর্ম বা ব্যক্তি। যারা আপনাদের কে নিজের সফলতা বা অন্যের কারো যিনি তাদের কোর্স করে সফলতা অর্জন করেছে তাদের গল্প শুনিয়ে আপনাকে এই সেক্টরে আগ্রহী করে তুলে।

কখনো ভেবেছেন কি? আসলেই কি এটা সম্ভব ৩-৬ মাস বা একবছর কাজ শিখে অনলাইনে হাজার হাজার ডলার বা টাকা ইনকাম করা সম্ভব। যদি সম্ভবই হয় তাহলে তারা কেন তাদের কাজে বেশি সময় না দিয়ে আপনাকে শিখানো নিয়ে এতো আগ্রহী হয়ে পড়েছে। কেন তারা এতো ডলারের প্রজেক্টে সময় না দিয়ে আপনার কাছে কোর্স সেল করছে। একটা লোক যে ফ্রিল্যান্সিং করে সফল হয়েছে তার পিছনের কাহিনী কি? না আপনারা অনেকেই জিনিস গুলো পর্যবেক্ষণ করে না কোন কিছু না বুঝেই সোজা কোর্সে ভর্তি হয়ে যান এবং এক সময় হতাশায় ভুগেন।

ফ্রিল্যান্সিং শেখার নামে প্রতারিত হচ্ছেন না তো?

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকামের চেয়ে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম করা যায় তা শিখিয়ে আয় করা সহজ হয়ে পড়েছে। আপনারা যদি বুঝতেন আপনাদের কে নিয়ে কি পরিমাণ ব্যবসা হয় তাহলে আপনারা এই আইটি ট্রেনিং প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি গুলোর থেকে একশত হাত দূরে থাকতেন। যদি আপনি আসলেই একজন সচেতন ব্যক্তি হয়ে থাকেন। কিছু মানুষ আছে যে এমন ভাবে ঐ লোক গুলোদের আইডল ভাবে যে তারা যেটাই বলুক অন্ধ বিশ্বাস করে ফেলে। উল্টা কেউ যদি সতর্ক করার চেষ্টা করে থাকে ভালো মন্দ বলে বসে।

ফ্রিল্যান্সিং বা অনলাইন থেকে টাকা ইনকামের বিষয়টা এমন সস্তা হয়ে গেছে যে মানুষ করে একটি পিসি ও ইন্টারনেট থাকলেই ইনকাম করা যায়। আমরা যখন একজন কোন ব্যক্তিকে ফ্রিল্যান্সিং করে অর্থ উপার্জন করতে দেখি তখন শুধু তাদের বাইরের দিকটা দেখি যে কত কাজ করছে কত টাকা ইনকাম করছে। কিন্তু এর পিছনে যে পরিশ্রম গুলো আছে শত ত্যাগ আছে সেইগুলো কেউ অনুধাবন করি না। যদি করতে পারতাম তাহলে হুট করে চটকদার বিজ্ঞাপন দেখে বা কারো ইনকাম দেখে কাল্পনিক আশা করতাম না।

এই রকম টাকা ইনকামের কথা চারিদিকে শুনে বিভিন্ন মানুষ হুট করে একটি কম্পিউটার কিনে বসে অথচ সে জানে না ফ্রিল্যান্সিং কি বা এটি কিভাবে করতে হয়, এটি করার জন্য কোন দক্ষতা অর্জন করতে হবে। আমি একজন ভালো ফ্রিল্যান্সার না হলেও এই ধরনের কমিনিউটির সাথে যুক্ত অনেকদিন যাবৎ তাই অনেক কিছু চোখে পড়ে। অনেকেই দেখেছি যে নতুন পিসি কিনেছি ফ্রিল্যান্সিং শিখবো কিভাবে শিখতে পারি? হুট করে এই সিদ্ধান্ত নিয়ে নিলো ? কেন মানুষটা বুঝল না শুধু কম্পিউটার কিনলে হবে না কম্পিউটার চালানোর জ্ঞান থাকতে হবে ইন্টারনেট চালানো সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে।

কারণ তাদের এই ধারণা গুলো নিয়ে আসার মধ্যে হাত রয়েছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির তারাই ফ্রিল্যান্সিং এইভাবে উপস্থাপন করছে। আমার কোর্সে ভর্তি হও আর কোর্স শেষ হাজার হাজার ডলার কামাই করো। শুধু এই প্রতিষ্ঠান গুলোর যে দোষ আছে তা না দোষ আপনাদের ও রয়েছে আপনারা লোভে পড়ে অন্ধ বিশ্বাস করে ভালো মন্দ কিছু না বুঝে শুনেও কোর্সে ভর্তি হয়ে যান এবং একটা সময় ইনকাম না করতে পারার জন্য হতাশ হয়ে পড়েন।

ফ্রিল্যান্সিং শেখানোর নামে আপনাকে যেভাবে বোঁকা বানানো হয়?

একটি প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তি তার কোর্সে আপনাকে ভর্তি করার জন্য অনলাইনে টাকা ইনকামের স্বপ্ন দেখিয়ে ভর্তি করাবে। তাদের সফলতার বা অন্যের গল্পের সফলতার গল্প শুনিয়ে আপনাকে আগ্রহী করে ভর্তি করাবে। কিন্তু কখনো এটা বলে না ফ্রিল্যান্সিং হুট করে সম্ভব হয় না বর্তমান সময়ে মার্কেটপ্লেসে ক্লায়েন্টের চেয়ে ফ্রিল্যান্সারই বেশি। তারা বলে না ফ্রিল্যান্সিং করতে একটা নির্দিষ্ট কাজের উপর ভালো দক্ষতা অর্জন করতে হয়।

আর এই দক্ষতার অর্জন করতে কারো বেশি সময় লাগে কারো আবার কম লাগে। আবার কাজ শেখার শেষে কাজ পাওয়ার জন্য কি রকম প্রতিযোগীতা করতে হয় সেটাও তারা বলে না। তারা শুধু এটা হাইলাইট করে যে ইনকাম করা যায় তোমরা কোর্সে আসো ভর্তি হও। ভুলটা হয় এইখানে কাজ শিখতে একটা ভালো সময় দিতে হয় আর এই সময় দেওয়ার পর কাজ পাওয়ার জন্য অনেক চেষ্টা করতে হয় কারো ভাগ্যে হুট করে কাজ পেয়ে যায় আবার কেউ ভালো কাজ জেনেও সহজে কোন না কোন কারণে কাজ পাই না। ঠিক সেই সময় ঐ ব্যক্তিটা হতাশ হয়ে পড়ে।

কারণ আপনি টাকা ইনকামের চিন্তা করে এই জগতে আসছেন এটাই আপনার ভুল আমি মনে করি। এখন বলবেন এই যে শুনি, অনেকে ইনকাম করছে এই গুলো কি মিথ্যা? না একদম মিথ্যা না তারা একটি কঠিন পর্যায় পার করে আসছে তারপর যে একটা ভালো ইনকাম করছে। কিন্তু আপনাদের কে ইনকাম করার চিন্তা মাথায় ঢুকিয়ে দিয়ে কোর্সে ঢুকাচ্ছে যার ফলে যখন কোর্স শেষ হয়ে কাজ করার চেষ্টা করেন কাজ পায় না তখন হতাশ হয়ে পড়ে।

আবার দেখা যায় অনেক নিউজ চ্যানেল গুলোতে কোন ব্যক্তি একজন ফ্রিল্যান্সিং করে সফল হয়েছে তো এরা এমন ভাবে নিউজ করে যেন না কি হয়ে গেছে। কিন্তু কখনো নিউজ গুলোকে এইটা দেখাতে দেখলাম সে কিভাবে এই পর্যায়ে এসেছে কতদিন রাত এক করে দিয়ে কাজ শিখেছে পরিশ্রম করে গেছে। শুধু ইনকাম দেখাও আর মানুষকে পাগল করে দাও আর এই পাগলামিতে সব ভুলে করে বসে থাকে।

ফ্রিল্যান্সিং শেখার প্রতিষ্ঠান গুলোর কান্ডকারখানা

আমি আপনি একটা স্কিল জানি সেই স্কিল শিখানোর বিনিময়ে পারিশ্রমিক আমরা নিতেই পারি। কিন্তু মানুষকে ভুল বুঝিয়ে ধোঁকা দিয়ে লোভ দেখিয়ে কোর্সে ভর্তি করে টাকা ইনকাম করা কখনোই ঠিক না। প্রথমত তারা লোভ দেখিয়ে ভুল বুঝিয়ে কোর্সে ভর্তি করাই তার উপর কোর্স ঠিক মতো কোন কিছু শেখায় না। মানসম্মত জিনিস হলে সেটির জন্য দাম দেওয়া যায়ই কিন্তু তাহারা তা করে ঐ বেসিক কিছু দেখিয়ে দিয়ে শেষ করে দিবে।

আবার এটাও সত্য একটা কোর্স করে যে আপনি সব কাজ বা ফ্রিল্যান্সিং শিখে যাবেন সেটা কখনোই না। একটা কোর্স আপনাকে হাতে খড়ি করিয়ে দিতে পারবে কিন্তু সারাজীবন শিখাতে পারবে না। আপনাকে এই জন্য নিজে থেকে শেখার আগ্রহ থাকা লাগবে যাতে করে কোন সমস্যা বা নতুন কিছু শেখার প্রয়োজন পড়লে শিখে নিতে পারনে তাছাড়া বেশি দিন টিকতে পারবেন না।

এই কোর্স বিক্রেতাকে গুলোকে মানুষ তাবিজ বিক্রেতাও বলে থাকে আসলেই যে ব্যাপারটা তাই। আপনাকে কোর্সে ভর্তি করারনোর সময় নানা ধরনের কথা বার্তা বলবে কিন্তু ভর্তি হওয়ার পর বিষয়টা পুরো উল্টো যে  জিনিস গুলো শিখাবে ফ্রিল্যান্সিং শেখার কোর্সের নামে সেই গুলোর চেয়ে ভালো টিউটোরিয়াল পাবেন অনলাইনে বা ইউটিউবে তাও আবার ফ্রিতে।

আবার সব প্রতিষ্ঠান গুলো যে খারাপ তাও না অনেক প্রতিষ্ঠান আছে তারা ভালো কাজ শেখায় এছাড়াও অনলাইনে ইন্টারন্যাশনাল অনেক ই-লার্নিং প্ল্যাটফর্ম আছে তারাও ভালো শিখিয়ে থাকে। কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির কাছে যাওয়ার আগে অবশ্যই যাচাই বাছাই করে নিবেন যে সঠিক শিক্ষা দেয় কিনা তারপরেই যে ভর্তি হওয়ার চিন্তা করবেন।  চেষ্টা করবেন যে সব প্রতিষ্ঠান কাজ শেখাকে গুরুত্ব দেয় নাকি অনলাইন ইনকামের সেসব প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির কাছে শেখা।

সবচেয়ে উত্তম কাজ হলো নিজে শেখার চেষ্টা করা ইউটিউব সহ বিভিন্ন ওয়েবসাইট অনেক রিসোর্স রয়েছে যেখান থেকে আপনি ফ্রিতেই যেকোন কিছু শিখতে পারেন। শুধু আপনার শেখার আগ্রহটা থাকা লাগবে তারপর যদি কোন ভাবে নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যেতে না পারেন তারপর কোন মেন্টর বা কোর্সে ভর্তি হওয়ার চিন্তা করতে পারেন। অথবা ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কিত অনেক গ্রুপ আছে যেখানে তাবিজ বিক্রেতা কম সেইখান থেকে কোন ব্যক্তি বা বড় ভাইকে মেন্টর হিসাবে জোগান দিতে পারেন। কোন না কোন ভালো ব্যক্তিকে পেয়েই যাবেন যে আপনাকে গাইড করবে।

ফ্রিল্যান্সিং শেখার কোন জিনিস না!

জি ভাই ফ্রিল্যান্সিং আসলে শেখার কোন জিনিস না। ফ্রিল্যান্সিং মানে হচ্ছে মুক্ত পেশা বা সোজা কথা বলতে গেলে অনলাইনে নিজের কোন একটি বা একাধিক দক্ষতা দিয়ে কারো কাজ করে দেওয়ার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করা। এখন যদি আপনার সেই স্কিল বা দক্ষতা না ই থাকে তাহলে আপনি কিভাবে কাজ করে দিবেন বলেন তো? এই জন্য বললা ফ্রিল্যান্সিং কোন শেখার জিনিস না। ফ্রিল্যান্সিং করতে গেলে প্রথম আপনাকে একটি সেক্টর চয়েস করতে হবে যেটি আপনি করতে ভালোবাসেন নাকি অন্য জন সেই সেক্টরে কাজ করে ভালো ইনকাম করছে বলে আপনিও সেটি শিখবেন বিষয়টি তা না।

ডিজিটাল অনেক স্কিল রয়েছে গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট, প্রোগ্রামিং, ডাটা ইন্ট্রি , ডিজিটাল মার্কেটিং ইত্যাদি। আপনাকে এইগুলোর মাঝে থেকে বেছে নিতে হবে একটি জিনিস যেটি আপনার করতে ভালো লাগবে। ইনকাম না আসলেও যেন সেই কাজটা করতে চান । হ্যাঁ অবশ্যই ইনকাম করবেন কিন্তু সেই চিন্তা এখন বাদ দিতে হবে এখন আপনাকে একটাই ফোকাস রাখতে হবে আমি কিভাবে একটা দক্ষতা অর্জন করবো।

তারপর আসবে ফ্রিল্যান্সিং জিনিসটা শেখার কিভাবে মার্কেটপ্লেসে অ্যাকাউন্ট খুলতে হয়, কিভাবে কাজ পাওয়ার জন্য গিগ তৈরি বা বিট করতে, প্রোফাইল কিভাবে সাজাতে হয় এই জিনিস গুলোই। আগেই আপনি কাজ জানেন না অনলাইনে কি ধরনের কাজ পাওয়া যায় ইত্যাদি না জেনে বুঝেই হুট করে ফাঁদে পা দিয়ে কোর্সে ভর্তি হলে চলবে না।

অধিকাংশ লোকজন এই ভুলটা করে যে কারো ইনকাম দেখল যে সে এই সেক্টরে ভালো করছে আর এই সেক্টরে এসে কাজ শেখা শুরু করল। যদি আপনি এমনটা করেন এক সময় এসে নিজেই ঠকে যাবেন। অন্য জন যে বিষয়ে অভিজ্ঞ সে বিষয়ে আপনি আগ্রহী বা অভিজ্ঞ হয়ে উঠবেন তার কোন মানে নেই সেই জন্য চেষ্টা করবেন যে আপনার কোন বিষটা ভালো লাগে সেটি এক্সপ্লোর করার।

উপসংহার

এই পোস্ট দেওয়ার মূল কারণ হলো আপনাদের কে সতর্ক করার জানানোর যে ফ্রিল্যান্সিং এতো সহজ জিনিস না যতটা সহজ ভাবে উপস্থাপন করা হয়। এটির পিছনের উদ্দেশ্য হলো আপনার কাছে থেকে টাকা লুটপাট করে নেওয়া তাছাড়া কেন নিজের কাজ ছেড়ে এসে কোর্স করাবে। যেসব টপ ফ্রিল্যান্সার গুলো আছে তাদের কে আপনি দেখতে পারবেন না  ঐভাবে। তারা এই ভন্ডদের মতো লাফালাফি করে না আমি এতো ডলার ইনকাম করি আপনারো আসুন আমি শিখাবো।

দয়া করে তাদের থেকে সাবধান হয়ে যান ফ্রিল্যান্সিং শেখার নামে প্রতারিত হবেন না। অবশ্যই শিখবেন অবশ্যই ইনকাম করবেন কিন্তু সেইটার জন্য টাকা ইনকাম করা এই জিনিসটা মাথায় থেকে ৬-১মাস পর্যন্ত সময় বাদ দিয়ে দিন। শুধু কাজ শেখার উপর পুরোটা ফোকাস করুন তাহলে পরবর্তী সময়ে কাজ না পাওয়ার জন্য , ইনকাম হচ্ছে না এইসব পরিস্থিতি সহজে অতিক্রম করতে পারবেন। আর না হয় হতাশ হয়ে পড়ে থাকবেন আর কাজ ছেড়ে দিবেন তাই ধৈর্য্য ধরুন চেষ্টা করুন।

কেউ হুট করে ফ্রিল্যান্সার হয়ে যায় নি , হাজার হাজার ডলার এতো সহজে ইনকাম করতে পারছে না। এর পিছনে লুকিয়ে রয়েছে সে কতদিন যাবত চেষ্টা করেছে বছরের পর বছর, মাসের পর মাসে, দিনের পর দিন পরিশ্রম করে এক পর্যায় গিয়েছে। নাকি তাদের নোংরা মার্কেটিং মতো সহজ বিষয়। এটাই ছিল আমার পক্ষ থেকে আপনাদের জন্য মেসেজ, এইসব প্রতিষ্ঠানে ও ব্যক্তির থেকে দূরে থাকুন সেলফ লার্নিং করুন লাগলে।

আর্টিকেলটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুরদের সাথে শেয়ার করুন এতে যারা মিথ্যা স্বপ্নে আছে তারা যেন বাস্তবতায় ফিরতে পারে এবং সুস্থ ভাবে তাদের ফ্রিল্যান্সিং করার যাত্রাটা শুরু করতে পারে।

ধন্যবাদ

আরো পড়ুনঃ

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কি? প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ কি?

দ্রুত কম্পিউটার টাইপিং শেখার নিয়ম | টাইপিং মাস্টার।

১০টি ফেসবুক মেসেঞ্জার টিপস এন্ড ট্রিক।

কিভাবে ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোড করবেন?

Connect with me on facebook: MD Biplop Hossain

 

Facebook Comments Box

MD Biplop Hossain

আমি এক স্ব-ঘোষিত হাবলু যে প্রযুক্তিকে ভালোবাসে এবং সেটি নিয়ে শিখতে জানতে পছন্দ করে। এই ধারাবাহিকতায় হাবলু যা জানে ও শিখছে সেই সকল জিনিস গুলো নিয়ে লেখার মাধ্যমে আপনাদেরকে জানানোর চেষ্টা করে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!