Programming Tutorials

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কি? প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ কি?

তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে “প্রোগ্রামিং” নামের এই শব্দটি শুনেন নি এমন মানুষ বোধ হয় খুব কমই পাওয়া যাবে। কেউ একাডেমিক বইয়ের পাতায়, কেউ বা ইন্টারনেট দুনিয়ায় প্রোগ্রামিং শব্দের সাথে পরিচিত হয়েছেন কিন্তু জানেন না আসলে প্রোগ্রামিং কি তাদের জন্য এই আর্টিকেল। আমি আমার এই ক্ষুদ্র জ্ঞান ও রিসার্চ থেকে এই আর্টিকেলের মাধ্যমে জানানোর চেষ্টা করবো কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কি? প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ কি জিনিস।

প্রোগ্রামিং কি সেটি ভালো ভাবে বুঝানোর জন্য আমি চেষ্টা করেছি বাস্তব উদাহরণ গুলো দিয়ে বুঝানোর জন্য। এবং তারপর চেষ্টা করেছি ফরমাল ভাবে বলার কারণ অনেক সময় ইন্টারনেটে অনেক শিক্ষার্থীরাও সার্চ করে “কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কি?” তাদের পরীক্ষার খাতায় সুন্দর করে লিখার জন্য এবং বুঝার জন্য। আশা করি এই আর্টিকেল থেকে প্রোগ্রামিং সম্পর্কে একটি সুষ্ঠ ও সুন্দর ধারণা পাবেন।

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কি? | প্রোগ্রামিং কি?

আমরা প্রায় সবাই কম্পিউটার নামক ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রটির সাথে পরিচিত যা শুরুর দিকে গণনাকারী যন্ত্র হিসাবে পরিচিত ছিল। শুরুর দিকে গণনাকারী হিসাবে যাত্রা শুরু করলেও বর্তমানের আধুনিক কম্পিউটার দিয়ে এখন শুধু গণনা করা যায় না এটি দিয়ে আমরা একে অপরের সাথে যোগাযোগ করতে পারি, বিভিন্ন ডকুমেন্ট তৈরি করতে পারি, ইন্টারনেট নামক জিনিসটি ব্যবহার করতে পারি, গেমস খেলতে পারি,  গান শুনতে পারি, ভিডিও দেখতে পারি আরো অন্যান্য কাজ করতে পারি।

কিন্তু আমরা কি কখনো ভেবে দেখেছি কম্পিউটার এতো কিছু কিভাবে করে থাকে? যখন আমরা গান শুনতে চাই গান বাজিয়ে দেয়, যখন আমরা কোন ভিডিও দেখতে চাই তখন সেই ভিডিও দেখিয়ে দেয়, গেমস খেলতে চাইলে গেমস খেলতে দেয়। কিন্তু আবারই ঐ একই প্রশ্ন কিভাবে পারে এতো সব কাজ। কম্পিউটার যা করতে দেয় না কেন কম্পিউটার জিরো আর ওয়ান ছাড়া কিছুই বোঝে না তবুও সে আপনার দেওয়ার কাজ করে দেয়।

এর কারণ হলো কম্পিউটার আগের থেকে জানে কেউ গান বাজাতে চাইলে গান বাজিয়ে দিতে হবে, কেউ ভিডিও গেমস খেলতে চাইলে গেমস খেলতে দিতে হবে। এই রকম হাজার হাজার কাজ কেউ চাইলে কখন কিভাবে করতে হবে সব কম্পিউটার আগের থেকেই জানে। আগের থেকে কিভাবে জানে? কম্পিউটার কে আমার আর আপনার মতো মানুষ আগের থেকে শিখিয়ে দিয়েছে যে কেউ যদি গান বাজাতে হয় এইভাবে বাজাবি, কেউ গেমস খেলতে চাইলে ঠিক ঐভাবে খেলতে দিবি।

কম্পিউটারকে এই ভাবে কমান্ড বা দিক নির্দেশনা দেওয়ার যে প্রক্রিয়া কে সাধারণত প্রোগ্রামিং বলা হয়ে থাকে। আমরা ছোট বেলায় হাঁট-চলা, কথা-বার্তা বলা পারতাম না এটা আমাদের পরিবারের লোক জন শিখিয়ে দিয়েছে যে এই ভাবে পা তুলে আস্তে আস্তে হাঁটতে হয়, কিভাবে কথা বলতে হয়, কিভাবে খাওয়া লাগে ইত্যাদি। আমরা বড় হওয়ার সাথে সাথে এই জিনিস গুলো আয়ত্তে নিয়ে নিয়েছি এরপর থেকে এই একই কাজ গুলো যখন যখন করা প্রয়োজন পড়ে সেটা করে ফেলি।

আমরা কোন কাজ করার প্রয়োজন পড়লে যে ডাইরেক্ট একদম করে ফেলি তা কিন্তু না! প্রত্যেকটা কাজ করার জন্য নির্দিষ্ট কিছু ধাপ থাকে সেই গুলো সম্পন্ন করলে একটা কাজ হয়। এই ধরুন আপনি সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে ব্রাশ করবেন এই ব্রাশ করার জন্য কিন্তু কয়েকটা ধাপ রয়েছে বা নির্দেশনা রয়েছে। প্রথমে আপনি ব্রাশ নিবেন তারপর ব্রাশে পেস্ট লাগিয়ে পানিয়ে ভিজিয়ে তারপর মুখের ভেতর ঘষাঘষি করবেন তারপর কুলি করে ব্রাশ করা সম্পন্ন করবেন। এই সব কাজ বা নির্দেশনার সমষ্টিকে আমরা একত্রে একটি প্রোগ্রাম বলতে পারি।

ঠিক তেমনি যখন আমরা কম্পিউটার দিয়ে গান বা অন্য কিছু করার চেষ্টা করি সে কিছু নির্দিষ্ট নির্দেশনা অনুসরণ করে গান বা কোন কাজ সম্পন্ন করে থাকে। কম্পিউটারের ভাষা এই সকল কাজ বা নির্দেশনার সমষ্টি গুলোকে একত্রে প্রোগ্রাম বলা হয়ে থাকে। নির্দিষ্ট একটি প্রোগ্রাম নির্দিষ্ট কোন কাজে করা হয়ে থাকে। আমরা যে সফটওয়্যার গুলো ব্যবহার করি মূলত এই গুলো বিভিন্ন নির্দেশনা বা প্রোগ্রামের সমষ্টি। যেগুলো দ্বারা আমরা আমাদের প্রয়োজনীয় কাজ গুলো সম্পাদন করে থাকি।

সহজ ভাষায়, কম্পিউটারকে দিক নির্দেশনা দিয়ে বিভিন্ন কাজ করে নেওয়ার পদ্ধতি বা প্রক্রিয়াকে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং বলা হয়ে থাক। নিচে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কি বা কাকে বলে জিনিস এক লাইনে সহজে বলা হলো।

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কাকে বলে?

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং হলো এক সেট নির্দেশনাবলীর(Instructions) তৈরির প্রক্রিয়া যা কম্পিউটারকে বলে দেয় কোন কাজ কিভাবে সম্পাদন করতে হবে।

উইকিপিডিয়া মতে প্রোগ্রামিংঃ কম্পিউটার প্রোগ্রামিং (ইংরেজিComputer programming) হল একটি নির্দিষ্ট কার্য সম্পাদন করার জন্য এক্সিকিউটেবল কম্পিউটার প্রোগ্রাম ডিজাইন ও বিল্ডিংয়ের প্রক্রিয়া। প্রোগ্রামের লিখিত রূপটিকে সোর্স কোড বলা হয়। যিনি সোর্স কোড লিখেন তাকে প্রোগ্রামার, কোডার বা ডেভেলপার বলা হয়। যেকোন বই যেমন একটি ভাষাতে যেমন ইংরেজি, রুশ, জাপানি, বাংলা, ইত্যাদিতে লেখা হয়, তেমনি প্রতিটি প্রোগ্রাম কোন একটি নির্দিষ্ট প্রোগ্রামিং ভাষাতে লেখা হয়,যেমন সি++জাভা ইত্যাদি। প্রোগ্রাম রচনা করার সময় প্রোগ্রামারকে ঐ নির্দিষ্ট প্রোগ্রামিং ভাষার সিনট্যাক্স বা ব্যাকরণ মেনে চলতে হয়। [১]আরো পড়ুন উইকিপিডিয়াতে

প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ কি? | প্রোগ্রামিং ভাষা

আমরা মানুষ একে অপরের মনের ভাব প্রকাশ করার জন্য ভাষা ব্যবহার করে থাকি। এই ভাষা দ্বারা আমরা কোন মানুষের সাথে বিভিন্ন কথা-বার্তা বলে অনেক রকম কাজ করে থাকি। ঠিক কম্পিউটার দিয়ে কোন কাজ করে নিতে চাইলে অবশ্যই তাকে বলে দিতে যে এই কাজটা আমাকে করে দাও। কিন্তু সে তো আপনার আমার সাধারণত ভাষা বুঝে না সে যা বুঝে 0 আর 1 অর্থাৎ মেশিন ভাষা আবার অনেক সময় একে বাইনারি ভাষাও বলা হয়, তাহলে তাকে কিভাবে ইনস্ট্রাকশন দিবেন যে এই কাজটি করে দাও আমাকে। যদি আপনি কম্পিউটারকে দিয়ে কাজ করিয়ে নিতে চান অবশ্যই তাহলে তাকে তার ভাষায় কথা বলতে হবে যে তুমি আমাকে এই কাজটি করে দাও। কম্পিউটারের সাথে কথা বা ইন্সট্রাকশন দেওয়ার জন্য যে ভাষা রয়েছে তার আবার প্রকারভেদ রয়েছে। এটি নিয়ে নিচে আলোচনা করা হবে আরো।

মানুষদের মনের ভাব প্রকাশ করার জন্য যেমন বিভিন্ন ভাষা রয়েছে বাংলা, ইংরেজি, হিন্দি, ফার্সি ইত্যাদি। ঠিক কম্পিউটারের সাথে কমিউনিকেশন বা নির্দেশনা দেওয়ার জন্য কালের বিবর্তনে অনেক ভাষার আবিষ্কার হয়েছে। কিন্তু তাদের কাজ একটি কম্পিউটারকে নির্দেশনা দিয়ে সেই মোতাবেক কাজ করে নেওয়া। যেমন আমাদের ভাষা যায় হোক কিন্তু আমাদের মন ভাব প্রকাশ যেন করতে পারি এটাই হলো মূল। এই ক্ষেত্রে ভাষার কিছু নিয়ম কানুন বা গ্রামার রয়েছে সেই গ্রামার বা নিয়ম অনুযায়ী আমাদের কে কথা বলতে হয়। এই রকম কম্পিউটারের ভাষার বা ল্যাঙ্গুয়েজের ক্ষেত্রেও কিছু নিয়ম কানুন রয়েছে যা মেনে নির্দেশনা লিখতে হয়।

প্রোগ্রামার কাকে বলে?

যে ব্যক্তি প্রোগ্রাম লিখে বা রচনা করলে সেই সব ব্যক্তিকে প্রোগ্রামার বলা হয়ে থাকে।

প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ কাকে বলে?

যে ভাষার মাধ্যমে কম্পিউটারকে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে কাজ করানো হয় সেইসব ভাষা কে প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ বা প্রোগ্রামিং ভাষা বলা হয়ে থাকে।

কিছু জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ এর নাম সমূহঃ

  • C
  • C++
  • C#
  • Java
  • Javascript
  • Python
  • Go
  • Kotlin
  • Swift
  • PHP etc.

প্রোগ্রামিং ভাষা কত প্রকার?

type of programming languages

প্রোগ্রামিং ভাষা বা ল্যাঙ্গুয়েজ কে সাধারণত দুই প্রকার।  যথাঃ

  1. Low Level Language
  2. High Level Language

Low Level Language

যেসব ভাষা কম্পিউটারের অর্থাৎ মেশিন সহজে বুঝতে পারে সেই সকল ল্যাঙ্গুয়েজকে Low Level Language বলে। লো লেভেল প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ আবার দুই প্রকার। যথাঃ

  1. Machine Language
  2. Assembly Language

Machine Language:  সংখ্যা পদ্ধতি Binary (0,1) কে মেশিন ভাষা বলা হয়ে থাকে। এটি কম্পিউটারের CPU কে সরাসরি বিভিন্ন কাজ করার নির্দেশনা দিয়ে থাকে। অর্থাৎ মেশিন ভাষা কম্পিউটারের অনেক কাছাকাছি একটি ল্যাঙ্গুয়েজ। কম্পিউটারের প্রথম প্রজন্মের ভাষা হলো মেশিন ল্যাঙ্গুয়েজ যা মানুষের পক্ষে বোঝা অনেক কষ্টের কিন্তু মেশিন অর্থাৎ কম্পিউটার সহজেই বুঝতে পারে।

Assembly Language: দ্বিতীয় প্রজন্মের কম্পিউটারের ভাষা হলো অ্যাসেম্বলি ভাষা। এই ভাষা মেশিন ভাষার তুলনায় মানুষের পক্ষে বোঝা একটি সহজতর হয়ে থাকে।

High Level Language

যেসব প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ মানুষের পক্ষে বোঝা অনেক সহজ কিন্তু মেশিন সরাসরি বোঝে না সেইসব সব ল্যাঙ্গুয়েজ কে High Level Language বলা হয়ে থাকে। হাইল লেভেল ল্যাঙ্গুয়েজ বা উচ্চতর প্রোগ্রামিং ভাষা মানুষের পক্ষে বোঝা অনেক সহজ এর কারণ হচ্ছে এটি ইংরেজি শব্দ ও চিহ্ন ব্যবহার করে কোড লেখা হয়ে থাকে। এই প্রোগ্রামিং ভাষার কমান্ড বা Satement গুলোর শাব্দিক অর্থ রয়েছে যা দ্বারা সহজেই কোনটার কাজ কি বোঝা সম্ভব হয়।

হাইল লেভেল ল্যাঙ্গুয়েজ গুলো কম্পিউটার সরাসরি বুঝতে পারে এর জন্য বিশেষ একটা সফটওয়্যার থাকে যাকে কম্পাইলার/ইন্টাপ্রেটার বলা হয়ে থাকে যা হাইল লেভেল ল্যাঙ্গুয়েজ কে মেশিন কোডে কনভার্ট করে অর্থাৎ শূন্য আর একে রুপান্তর করে সিপিইউ কে নির্দেশ পাঠায় এবং সেই মোতাবেক কার্যক্রম চালনা করা হয়।

হাইল লেভেল ল্যাঙ্গুয়েজ কে আবার দুই ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে। যথাঃ

  1. Procedural Language
  2. Object Oriented Language

Procedural Language: যে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ভাষায় কিছু নির্দেশনা অনুরসরণ করে ধাপ ধাপে সুগঠিত ভাবে প্রোগ্রাম লেখা হয় সেই সব ভাষা কে Procedural Language বলা হয়ে থাকে। যেমনঃ C, Pascal, Fortran ইত্যাদি।

Object Oriented Language: অবজেক্ট অরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং হলো এমন এক ধরনের প্রোগ্রামিং পদ্ধতি যেখানে ডাটা অ্যাবস্ট্রাকশন, ইনহেরিটান্স, পলিফিরজম, ইন্সুলেশন সহ বিভিন্না ফিচার ব্যবহার করে প্রোগ্রাম লেখা যায়। আর এইসব ফিচার যেসব প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজে রয়েছে সে সকল প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ কে Object Oriented Language বলা হয়ে থাকে।

আশা করি, প্রোগ্রামিং ভাষা কত প্রকার ও কি কি আপনাদের সহজেই বোঝাতে পেরেছি। আমি আমার ক্ষুদ্রু জ্ঞান ও রিসার্চ থেকে যতটুকু পেরেছি বোঝানোর চেষ্টা করেছি এর মাঝে কোন ভুল ত্রুটি থাকলে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে ভুলবেন না।

প্রোগ্রামিং জগত

বর্তমান সময়ে আমাদের আশে পাশে যা কিছু রয়েছে তার প্রায় সব কিছুতেই প্রোগ্রামিং এর ছোঁয়া রয়েছে। এই যে আপনি আমার লেখাটি এখন পড়ছেন এটিও সম্ভব হয়েছে প্রোগ্রামিং এর অবদানে। আবার হাতের যে অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল এটিতেও রয়েছে প্রোগ্রামিং। ফটো ও ভিডিও ইডিটিং করার জন্য যেসব আমরা অ্যাপ ব্যবহার করি ঐ অ্যাপ গুলোর মধ্যেও রয়েছে প্রোগ্রামিং। বড় বড় হলিউড মুভি গুলোতে অসাধারণ সব ভিএফএক্স দৃশ্য থাকে যেগুলো ইডিট করার সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয় এই গুলো তৈরি হয়েছে প্রোগ্রামিংয়ের মাধ্যোমে।

আমরা যে কম্পিউটার ও মোবাইলে গেমস খেলছি এটির পিছনেও রয়েছে প্রোগ্রামিং এর অবদান রয়েছে। গেমস খেলার সময় যে সব মুভমেন্ট করে থাকি বা গেমের ক্যারেক্টারকে নির্দেশ দেয় এই ঐডা করার এই গুলোর পিছনে রয়েছে প্রোগ্রামিং। এই রকম আরো হাজারো উদাহরণ দেওয়া সম্ভব প্রোগ্রামিং কোথায় কোথায় ব্যবহার হচ্ছে এটি বোঝানোর জন্য। কিন্তু তা দেওয়ার শুরু করলে আর্টিকেলটি অনেক বড় হয়ে যাবে তাই আপনাদের আগ্রহ তৈরির জন্য আজ এতটুকু থাকলো এই বিষয়ে আবার কখনো বিস্তারিত আলোচনা করলেও করতে পারি।

কেন প্রোগ্রামিং শিখবেন?

প্রোগামার শেখার মাধ্যমে আপনি নিজেকে অন্য সব মানুষের থেকে আলাদা হিসাবে উপস্থাপন করতে পারেন। অনেকে বলে থাকে, প্রোগামিং জানা মানুষ গুলো অন্য মানুষ থেকে একটু বিশেষ বা আলাদা হয়ে থাকে। প্রোগ্রামিং শেখার মাধ্যমে আপনি আইটি খাতে নিজের একটি ভালো ক্যারিয়ার করে তুলতে পারেন। কাজ করতেন পারেন ফেসবুক, গুগল, অ্যামাজন এর মতো বড় বড় কোম্পানি গুলোর সাথে। আবার শুধু নিজের ক্যারিয়ার গড়া ছাড়াও মজার জন্য বা নিজে কিছু তৈরির করার জন্য কম্পিউটারকে নিজের দেওয়ার নির্দেশ মোতাবেক কাজ করে নেওয়ার জন্য প্রোগ্রামিং শিখতে পারেন।

এক কথায়, প্রোগ্রামিং শেখার মাধ্যমে আপনি আইটি খাতে নিজের একটি ভালো ক্যারিয়ার তো গড়তে পারেন সেই সাথে প্রোগ্রামিং করে অনেক কিছু তৈরিও করতে পারেন। যা আপনার ও আমার দৈনন্দিন জীবনে অনেক কাজে আসতে পারে।

কোথায় ও কিভাবে প্রোগ্রামিং শিখবেন?

কোথায় ও কিভাবে প্রোগ্রামিং শিখবেন এটি নিয়ে অন্য কোন আর্টিকেল বিস্তারিত ও রিসোর্স সহ জানানোর চেষ্টা করবো। এখন হালকা করে বলে রাখি প্রোগ্রামিং শুরু করার জন্য আপনার প্রথম ধাপ হলো প্রোগ্রামিং ভাষা নির্বাচন করা। কোন প্রোগ্রামিং ভাষা দিয়ে আপনি শিখা শুরু করবেন সেটি নিবার্চন করে তারপর সেটির জন্য উপযুক্ত ব্লগ, বই, টিউটোরিয়াল ভিডিও সহ অন্যান্য রিসোর্স খুঁজে বের করা। যখন আপনি প্রোগ্রামিং শিখতে যাবেন দেখবেন অনেকেই অনেক কিছু সাজেস্ট করছে কেউ বলছে C দিয়ে প্রোগ্রামিং শিখা শুরু করো, আবার কেউ বলছে Python দিয়ে শুরু করো, আবার কেউ বলছে C++ দিয়ে শুরু কর এই রকম নানান মানুষের নানান মতো দেখতে পাওয়া যায়।

আমি কিছু প্রোগ্রামারকে ফলো করি বা অনুসরণ করি তাদের অনেকেই পরামর্শ দেয়, নিজের অবস্থার উপর ভিত্তি করে প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ চয়েস করা। যদি আপনি স্কুলে পড়াশোনা করে এখনো ইন্টারমিডিয়েট এ উঠেন নি তাহলে আপনি সি বা পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা দিয়ে শুরু করতে পারেন। আর যদি ইন্টারমিডিয়েটে পড়াশোনা করে থাকেন তাহলে সি প্রোগ্রামিং দিয়ে শুরু করতে পারেন কারণ ইন্টারের আইসিটি বইয়ে সি প্রোগ্রামিং আছে। এর ফলে আপনার এক ঢেলে দুই পাখি মারা হয়ে যেতে পারে প্রোগ্রামিং ও শিখা হবে একাডেমিক সিলেবাসের পড়াও হবে।

আবার অনেকেই আছে ভার্সিটি লেভেলে কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে পড়াশোনা করছে তাদের পরামর্শ দেয় যে, ভার্সিটিতে যে প্রোগ্রামিং ভাষা শুরুতে রয়েছে সেটি দিয়ে শেখা শুরু করা। আর যারা নন সিএসই তারা যেকোন একটি দিয়ে শুরু করতে পারেন। মূল কথা হলো যেকোন একটি দিয়ে শুরু করা প্রত্যেকটা প্রোগ্রামিং ভাষায় একই শুধু লেখার নিয়ম বা নির্দেশনা দেওয়ার নিয়ম গুলো আলাদা হয়ে থাকে। তাই আপনি যদি একটি প্রোগ্রামিং ভাষা আয়ত্তে আনতে পারেন তাহলে বাকি গুলো সহজেই শিখতে পারবেন প্রয়োজন অনুযায়ী।

কিছু প্রোগ্রামিং শেখার রিসোর্স

সি প্রোগ্রামিং শিখার তামিম শাহরিয়ার সুবিন ভাইয়ের এই ব্লগটি পড়তে পারেন এছাড়াও তার কিছু বইও রয়েছেঃ

http://cpbook.subeen.com/

পাইথন প্রোগ্রামিং শেখার জন্যঃ https://hukush-pakush.com/

এই দুটি রিসোর্স থাক আরো যদি লাগে আপনারা ইউটিউবে গিয়ে সার্চ করতে পারেন। আমি বেশি রিসোর্স এই আর্টিকেলে দিচ্ছি না কারণ পরবর্তীতে এই নিয়ে আরেকটি আর্টিকেল আসবে।

আশা করি, এই আর্টিকেল থেকে আপনারা জানতে পেরেছেন কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কি? প্রোগ্রামিং ভাষা কত প্রকার ও কি কি? কেন প্রোগ্রামিং শিখবেন ও কিভাবে শিখবেন। এই আর্টিকেল উদ্দেশ্য ছিল আমি যতটুকু জানি ও রিসার্চ করে পিয়েছে ততোটুকু দিয়ে আপনাদের সবাইকে প্রোগ্রামিং সম্পর্কে ধারণা দেওয়ার। এর মধ্য যদি কোন ভুল-ত্রুটি হয়ে থাকে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন এবং সংশোধন করানোর জন্য নিচের কমেন্ট বক্সে সুন্দর ভাবে ভুলটি ধরিয়ে দিবেন।

ধন্যবাদ

আরো পড়ুনঃ

১০টি ফেসবুক মেসেঞ্জার টিপস এন্ড ট্রিক।

ওয়েব হোস্টিং কি? হোস্টিং কত প্রকার – বিস্তারিত আলোচনা।

গিটহাব স্টুডেন্ট ডেভেলপার প্যাক কি? বিস্তারিত।

স্টুডেন্টদের জন্য ৫টি সেরা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ – 2022।

Visual Studio Code একটি শক্তিশালী কোড ইডিটর।

Facebook Comments Box

MD Biplop Hossain

আমি এক স্ব-ঘোষিত হাবলু যে প্রযুক্তিকে ভালোবাসে এবং সেটি নিয়ে শিখতে জানতে পছন্দ করে। এই ধারাবাহিকতায় হাবলু যা জানে ও শিখছে সেই সকল জিনিস গুলো নিয়ে লেখার মাধ্যমে আপনাদেরকে জানানোর চেষ্টা করে।

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!