Computer Tips

দ্রুত কম্পিউটার টাইপিং শেখার নিয়ম | টাইপিং মাস্টার।

আপনি কি ঘরে বসে ফ্রিতে দ্রুত কম্পিউটার টাইপিং শেখার নিয়ম খুঁজছেন? গুগলে সার্চ করে যাচ্ছেন টাইপিং শিখতে চাই, কিভাবে টাইপিং শিখবো, টাইপিং শেখার সহজ, টাইপিং শেখার সফটওয়্যার, ইংরেজি টাইপিং শেখার নিয়ম, বাংলা টাইপিং শেখার নিয়ম ইত্যাদি। সেই সব ব্যক্তিদের জন্য আজকের এই টাইপিং শেখা বিষয়ক এই গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন আসা করি উপকারে আসবে।

কম্পিউটার টাইপিং শেখার নিয়ম

আপনি কি একজন কম্পিউটার ব্যবহারকারী কিন্তু আজও কীবোর্ড না দেখে টাইপ করতে পারেন না? টাইপিং করার প্রয়োজন হলে এক হাত দিয়ে কীবোর্ড চেপে যাচ্ছেন? তাহলে আজকে আপনাদের কিছু টিপস দিবো যেগুলো ফলো করলে ঘরে বসে কম্পিউটার টাইপিং শিখতে পারবেন। বর্তমান সময়ে কম্পিউটারে টাইপিং করতে পারা একটি বিশেষ দক্ষতার মধ্যে পড়ে থাকে। আপনি কম্পিউটারে যেকোন কাজ করতে যান না কেন টাইপিং এর প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য।

চাকরি করতে গেলে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় কম্পিউটারের কাজ যারা পারে তাদের একটু বিশেষ ভাবে দেখা হয়। কম্পিউটারের বেসিক কাজ গুলো মধ্যে টাইপিং করতে পারা একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ কারণ কীবোর্ডের মাধ্যমে আপনাকে লিখে বিভিন্ন কাজ কর্ম করতে হবে। চাকরি করার ক্ষেত্র ছাড়াও অন্য যে কোন ক্ষেত্রে কম্পিউটার টাইপিং জানা বা শিখা জরুরি। তাই আজকে আপনাদের কে আমার অভিজ্ঞতা থেকে কম্পিউটার টাইপিং শেখার নিয়ম শেয়ার করবো এবং সেই সাথে কোথায় কিভাবে টাইপিং শিখবেন সেই বিষয়ে আলোচনা করব।

টাচ টাইপিং (Touch Typing)

কম্পিউটারে এক হাতের একটি আঙ্গুল দিয়ে দেখে দেখে টাইপিং করলেই টাইপিং করা হয় না। কম্পিউটারে টাইপ করার জন্য কিছু নিয়ম রয়েছে সেই নিয়ম মেনে যদি টাইপিং করেন আপনি বেশি দ্রুত টাইপিং করতে পারবেন। হাতের ১০টি আঙ্গুল ব্যবহার করে কীবোর্ড না দেখে মনিটরের দিকে তাকিয়ে থেকে টাইপ করার কৌশল কে টাচ টাইপিং বলা হয়ে থাকে(Touch Typing) একবার এটি শিখে গেলে আপনি ধীরে ধীরে অনেক দ্রুত টাইপ করতে পারবেন।

টাইপিং শেখার সফটওয়্যার

কম্পিউটারে টাইপিং শেখার অনেক নিয়ম রয়েছে তারমধ্যে একটি পদ্ধতি হলো কিবোর্ডের কী গুলো কোন আঙ্গুল দিয়ে টাইপ করবেন সেটি জানার উপর নিজে নিজে প্রাক্টিস করে যাওয়া। অপর দিকে আরেকটি পদ্ধতি হলো কিছু অনলাইন ও অফলাইন ভিত্তিক কম্পিউটার টাইপিং শেখার সফটওয়্যার রয়েছে যেগুলো আপনাকে শিখিয়ে দিবে কিভাবে কোন আঙ্গুল দিয়ে কোন কী টি চাপবেন এবং নিয়ম মাফিক ধীরে ধীরে আপনাকে ট্রেনিং দিয়ে তৈরী করবে। এই গুলোর মধ্য আমি একটি টাইপিং শিখার অফলাইন সফটওয়্যার এবং একটি অনলাইন সফটওয়্যারের সাথে পরিচিত করে দিবো।

টাইপিং শেখার ১ম পদ্ধতিঃ টাইপিং মাস্টার প্রো সফটওয়্যার

টাইপিং শেখার জনপ্রিয়ম একটি সফটওয়্যার হলো টাইপিং মাস্টার সফটওয়্যার। আপনি সহজেই টাইপিং মাস্টার সফটওয়্যার ব্যবহার করে অল্প সময়ের মধ্যে কম্পিউটার টাইপিং শিখে নিতে পারেন। এই সফটওয়্যার আপনাকে শিখে দিবে হাতের কোন আঙ্গুল দিয়ে কীবোর্ডের কোন কী(Key) টি চাপতে হবে। সফটওয়্যারে বিভিন্ন অধ্যায় রয়েছে প্রত্যেক অধ্যায়ে নতুন কী বা লেটার টাইপ করা শিখবেন। কিন্তু এখানে সমস্যা হলো টাইপিং মাস্টার সফটওয়্যারটি একটি পেইড সফটওয়্যার এটি ব্যবহার করে টাইপিং শিখতে হলে আপনাকে টাকা খরচ করতে হবে।

কিন্তু আজকে এই আর্টিকেল লেখার সময় আমি তাদের সাইট ভিজিট করে দেখলাম এবং সফটওয়্যার ডাউনলোড করে দেখলাম কোন ধরনের লাইসেন্স বা কিছু চাচ্ছে না। বেসিক লেসন অর্থাৎ যারা একদম টাইপিং পারে না তাদের জন্য যে লেসন সেটি ফ্রিতে আমি অ্যাক্সেস করতে পাচ্ছি। তো আপনারা টাইপিং মাস্টার সফটওয়্যার ডাউনলোড করে চেষ্টা করে দেখতে পারেন। তো কিভাবে টাইপিং মাস্টার সফটওয়্যার দিয়ে টাইপিং শিখবেন সেটি জানতে নিচের পদ্ধতি ফলো করুনঃ

১। প্রথমে টাইপিং মাস্টারের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে Typing Master Download করে নিন।

২। তারপর সফটওয়্যারটি অন্য সফটওয়্যার গুলো যেভাবে ইনস্টল করেন ঠিক ঐ ভাবে ডাউনলোড ফাইলটি তে ডাবল ক্লিক করে Next Next করে সফটওয়্যারটি ইনস্টল করুন।

৩। সফটওয়্যারটি ওপেন করার পর এমন একটি ইন্টারফেস পাবেন। এখানে আপনার নাম দিয়ে Enter বাটনে ক্লিক করুন।

Typing Master

৪। এরপর সফটওয়্যারের ডান পাশে দেখুন Studying লেখা আছে এখানে ক্লিক করার পর Fast Touch Typing Course এর Start Now বাটনে ক্লিক করুন।

typing master course

৫। টাইপিং মাস্টারের Fast Touch Typing Course এর সকল অধ্যায় গুলো এখানে দেখতে পারবেন যেহেতু আপনি এখনো কোন অধ্যায় কমপ্লিট করেন নি তাই 1.1 নাম্বার অধ্যায় থেকে শুরু করবেন। প্রথম অধ্যায়ের 1.1 এ  আপনাকে কিছু কথা ও নিয়ম বলবে সেই অনুযায়ী আপনি কাজ করবেন। প্রত্যেকটি লেসন পার করার পর Next বাটনে ক্লিক করবেন।

typing master lesson

এই পদ্ধতিতে আপনি সহজেই টাইপিং মাস্টার সফটওয়্যার ব্যবহার করে ইংরেজিতে টাইপিং করা শিখতে পারবেন। এই সফটওয়্যার গুলো দিয়ে টাইপিং শেখার সময় যথা সম্ভব চেষ্টা করবেন কীবোর্ডের দিকে না তাকানোর। শুরুতেই আপনি টাইপিং দ্রুত করতে পারবেন শুরুতেই এই উদ্দেশ্য থাকাও উচিত না যথা সম্ভব চেষ্টা করুন যে না দেখে সঠিক কীবোর্ডের কী গুলো চাপার। ধীরে ধীরে এমনি এক সময় দ্রুত টাইপিং করতে পারবেন শুরুতে চেষ্টা করুন নিয়ম গুলো শেখার। আশা করি কম্পিউটার টাইপিং শেখার নিয়ম বা পদ্ধতি এর মাধ্যমে সহজেই আপনি টাইপিং শিখে যাবেন।

টাইপিং শেখার ২য় পদ্ধতিঃ অনলাইনে টাইপিং শেখার সফটওয়্যার Typing.com

এখন আপনাদের সাথে এমন একটি ওয়েবসাইট ভিত্তিক সফটওয়্যারের সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো সেটি দিয়ে সম্পূর্ণ ফ্রিতে টাইপিং শিখতে পারবেন। মূলত এটি একটি ওয়েবসাইট যার মাধ্যমে আপনি অনলাইনে টাইপিং শিখতে পারবেন এবং প্রাক্টিস করার জন্য কোন সফটওয়্যার ইনস্টল করার প্রয়োজন নেয়। ওয়েবসাইটটির নাম হলো Typing.Com এটি দিয়ে টাইপিং শিখার পদ্ধতি নিচে দেওয়া হলোঃ

১। প্রথমে https://typing.com ওয়েবসাইটটি ভিজিট করুন তারপর ডানপাশে Sign Up Now বাটনে দেখতে পারবেন। এখানে মাউস নিয়ে গেলে দুটি অপশন পাবেন আপনি যদি স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন তাহলে Student Signup করবেন আর যদি শিক্ষক হয়ে থাকেন Teacher signup করবেন।

free online typing course

২। এখন ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড ও ইমেইল দিয়ে একটি অ্যাকাউন্ট করে নিন অথবা Signup up with অপশন ব্যবহার করতে পারেন। অ্যাকাউন্ট করা হয়ে গেলে লগিন বাটনে ক্লিক করে লগিন করুন।

touch typing course

৩। লগিন করার পর নিচের স্ক্রিনশটের মতো ইন্টারফেস পাবেন। এরপর দেখুন আপনাকে একটা টাইম সেট করতে বলতেছে আপনি প্রতিদিন কত মিনিট টাইপিং করায় সময় দিতে চান সেটি সেট করে ফেলুন। তারপর নিচের দিকে কিছু প্রশ্ন করছেন সেটির উত্তর দিলে দিতে পারেন না হলে ক্রস বাটন ক্লিক করুন।

এখন যেহেতু আপনি একদম  বিগেনার তাই খেয়াল রাখবেন আপনার বাম পাশের অপশনে আপনি Beginner সেকশনে আছেন কি না। এখন টাইপিং শেখার জন্য Start বাটনে ক্লিক করুন তারপর ওরা যেভাবে যে নিয়মে টাইপিং শিখায় শিখতে থাকুন। টাইপিং মাস্টারে যেভাবে টাইপিং শেখার সিস্টেম ঠিক এইখানেও ঐ একই সিস্টেম শুধু খেয়াল রাখবেন কোন আঙ্গুল দিয়ে কোন Key চাপতে বলছে ফলো করবেন।

টাইপিং ডট কমে টাইপ শেখার একটি মজার বিষয় হলো এখানে আপনাকে গেমস খেলতে দিবে। টাইপিং শেখার গেমস মানে প্রত্যেক কী বা লেটার শিখানোর পর একটা গেমস আছে ঐটা খেলতে দেয় যাতে প্রাক্টিস হয়ে যায় এবং কোর্সটা কমপ্লিট করার পর নিচের মতো সার্টিফিকেট ও পাবেন।

MD Biplop Hossain typing certificate

আশা করি, কম্পিউটার টাইপিং শেখার নিয়ম দুটি আপনাদের কে কম্পিউটারে আগের চেয়ে ভালোভাবে না দেখে দেখে লিখতে সাহায্য করবে। যদি আর্টিকেলটি ভালো লাগে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। আর আমার এই রকম আর্টিকেল যদি মিস না করতে চান তাহলে আবম পাশে দেখুন একটি বেল বাটন আছে এটি তে ক্লিক করে নোটিফিকেশন অন করে দিন তাহলে পরবর্তীতে আমি যখন কোন পোস্ট করবো আপনি নোটিফিকেশন পেয়ে যাবেন।

টাইপিং শিখতে কত দিন লাগে?

টাইপিং শিখতে কত দিন সময় লাগে এটি একটি কমন প্রশ্ন যারা নতুন টাইপিং শিখতে যাচ্ছেন তাদের পক্ষ থেকে। আসলে এটি নির্ভর করে আপনি কেমন সময় দিচ্ছেন আর আপনার বুঝার করার ক্ষমতার উপর। কেউ কোন একটা নতুন বিষয় অল্প সময়ে শিখে আবার কেউ আরো বেশি সময় লাগে শিখতে। শিখার বিষয়টি পুরো নির্ভর করে ব্যক্তির উপর তাও যদি গড় হিসাবে বলি তাহলে প্রতিদিন যদি আপনি ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘন্টা করে সময় দেন তাহলে ৭ দিনের মধ্যে টাইপিং শিখে যাবেন। সাত দিনে আপনি টাইপিং করার গুরু হবেন না কিন্তু কোথায় কোন কী আছে না দেখে টাইপ করার ক্ষমতা হয়ে যাবে এটিই অনেক সময় মতো টাইপিং স্পিড বেড়ে যাবে।

কম্পিউটারে দ্রুত টাইপ করার কৌশল

এতোক্ষণ আমরা আলোচনা করলাম কিভাবে কম্পিউটার টাইপিং শিখতে পারি এখন বলবো কিভাবে দ্রুত টাইপ করবেন অর্থাৎ টাইপিং স্পিড বাড়ানোর উপায়। প্রথমেই আপনি চেষ্টা করবেন কীবোর্ডের দিকে নজর না ফিরে টাইপ করার এটি অনেক গ্রুরত্বপূর্ণ। শুরুতে আপনাকে দ্রুত টাইপিং করার প্রয়োজন নেয় আপনার যেটা করা উচিত সেটা হলো না দেখে সঠিক আঙ্গুল দিয়ে সঠিক কী টি চাপচ্ছেন কিনা। তারপর যখন মোটামুটি শিখে যাবেন তখন টাইপিং স্পিড বাড়ানোর জন্য নিচের পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করতে পারেন।

  • ফেসবুক ব্যবহার করে না এমন মানুষ খুবই কম আছে তো যখন আপনি ফেসবুক ব্যবহার করবেন তখন মোবাইল ব্যবহার না করে কম্পিউটারে বসে চ্যাটিং করবেন। আমি ঠিক এইভাবেই টাইপিং শিখে এসেছি আর এখন আল্লাহ’র রহমতে মোটামুটি ভালো টাইপিং স্পিড আছে। যতদূর মনে আছি আমি সাত দিনের মতো টাইপিং মাস্টারে ৩০ মিনিটের মতো সময় দিয়ে তারপর ফেসবুকে বন্ধুদের সাথে চ্যাটিং করা শুরু করছিলাম ফেসবুকে এর ফলে আমার টাইপিং স্পিড সময়ের সাথে সাথে আগের থেকে অনেক বেড়ে গেছে। মূলত টাইপের নিয়ম শেখার পর ফেসবুকে এসে আপনি বন্ধুদের সাথে চ্যাট করার মাধ্যমে টাইপিং শিখে ফেলতে পারেন।
  • আপনার ইংরেজি বইয়ের প্যারাগ্রাফ বা বিভিন্ন গল্প দেখে দেখে কম্পিউটারের নোড প্যাড সফটওয়্যারে টাইপ করতে পারেন। এই সময় আপনি চেষ্টা করবেন বইয়ের দিকে তাকিয়ে থেকে কীবোর্ড না দেখে লাইন গুলো টাইপ করার। এইভাবে প্রাক্টিস করতে থাকুন কিছু দিন তারপর ফলাফল নিজেই দেখতে পারবেন।
  • উপরের দুই পদ্ধতি ছাড়া গুগলে যদি সার্চ দেন Typing Test তাহলে অনেক গুলো ওয়েবসাইট পাবেন সেই ওয়েবসাইট গুলোতে ভিজিট করে টাইপিং টেস্ট দিতে পারবেন। সেই গুলো তে গিয়ে প্রতিদিন একটু করে সময় দিন তারপর ধীরে ধীরে এমনি দেখবেন আপনার টাইপিং করার গতি বেড়ে যাচ্ছে।

গেমস খেলে টাইপিং শিখুন

নিচে দুটি মজার ওয়েবসাইট শেয়ার করলাম যেখানে আপনি গেমস খেলার মাধ্যমে আপনার টাইপিং শেখার চর্চা করতে পারবেন।

তো দেরি কিসের? আজ থেকে টাইপিং প্রাক্টিস করা শুরু করে দিন। প্রতিদিন ৩০ মিনিট করে টাইপিং শেখার পিছে ব্যয় করুন আশা করি এক সপ্তাহের মধ্যে ভালো একটা পার্থক্য তৈরী করতে পারবেন।

আমার অন্যান্য আর্টিকেলঃ

গিটহাব স্টুডেন্ট ডেভেলপার প্যাক কি? বিস্তারিত।

.me ফ্রি ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন স্টুডেন্টদের জন্য Github দিয়ে।

টু স্টেপ ভেরিফিকেশন কি? ফেসবুক ও জিমেইলে সেটআপ পদ্ধতি।

অপ্রয়োজনীয় কম্পিউটার সফটওয়্যার আনইন্সটল করার নিয়ম।

Visual Studio Code একটি শক্তিশালী কোড ইডিটর।

Racydev Linky – ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগের লিংক থেকে আয় করার উপায়।

Facebook Comments Box

MD Biplop Hossain

আমি এক স্ব-ঘোষিত হাবলু যে প্রযুক্তিকে ভালোবাসে এবং সেটি নিয়ে শিখতে জানতে পছন্দ করে। এই ধারাবাহিকতায় হাবলু যা জানে ও শিখছে সেই সকল জিনিস গুলো নিয়ে লেখার মাধ্যমে আপনাদেরকে জানানোর চেষ্টা করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!